বাংলাদেশে সর্বাধিক বিক্রিত এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে আপনি এক ক্লিকে জানতে পারবেন:
 
১. ব্যবসায় মূলধন বর্তমানে কত আছে।
২. কত টাকায় ব্যবসা আরম্ভ হয়েছিল।
৩. কত টাকার পণ্য কিনছেন।
৪. কত টাকার পণ্য স্টকে আছে।
৫. প্রতিদিন কত টাকা বিক্রি হচ্ছে।
৬. কত লাভ হচ্ছে দিনে,মাসে,বৎসরে।
৭. খরচ বাদে দৈনিক লাভ ,মাসিক,বাৎসরিক লাভ।
৮. কর্মচারীদের বেতন কত টাকা দিলেন।
৯. ব্যক্তিগত ভাবে কত টাকা খরচ করলেন।
১০. ক্রেতা কোন পণ্য কিনে তা ফেরৎ দিয়েছেন কিনা।
১১. ক্ষতির পরিমাণ কত অথবা ক্রয় পণ্য ফেরৎ হয়েছে কত ।
১২. মালিকের জন্য আলাদা হিসাব,লাভ লস শুধু মালিক জানতে পারবে,কর্মচারীরা শুধু বিক্রি করতে পারবে।
১৩. কর্মচারী পণ্যের প্রকৃত ক্রয় মূল্য দেখতে পারবে না।
১৪. ব্যবসার কোন পণ্য চুরি বা হারানোর কোন সম্ভাবনা নেই।
১৫. ক্রেতা পণ্য কেনার সাথে সাথে ভাউচার তৈরি হবে।এতে ব্যবসায় কোন প্রকার ক্যাশ মেমোর প্রয়োজন নাই।
১৬. এ সফ্টওয়্যারটি অটোমেটিক পদ্ধতিতে কাজ করে,শুধু ক্রেতার নাম ও পণ্যের নাম লিখলেই এটা নিজে থেকে সকল কাজ করে নিবে।
১৭. প্রতিদিন কত টাকা আপ্যায়ন হিসেবে খরচ করছেন।
১৮. এটা ব্যবসায়ের প্রতিটি পণ্যের হিসাব নিবে। ফলে মালিকের ব্যবসায় স্থলে সব সময় উপস্থিত থাকার প্রয়োজন নাই।
১৯. এটা লাভ জনক পণ্যগুলি ব্যবসায় রাখার পরামর্শ দিবে।
২০. বাকীতে বিক্রিত পণ্যের তালিকা ও ক্রেতার নাম আলাদাভাবে প্রকাশ করবে।
২১. মাত্র একটি ক্লিকেই জানতে পারবেন, ব্যবসায়ের আয় উন্নতি, ক্ষতি, মূলধন, ব্যবসার অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ।
২২. বার কোডের মাধ্যমে আপনি পণ্য বিক্রি করতে পারবেন।
২৩. স্বল্প খরচে আপনি পস প্রিন্টারে ক্যাশ মেমো দিতে পারবেন বা গ্রাহকের মোবাইল ফোনে এস. এম. এস এর মাধ্যমে মেমো দিতে পারবেন।
২৪. এতে টাকা যোগ বিয়োগ বা ব্যবসায় ক্যালকুলেটর রাখার প্রয়োজন নাই।
২৫. এ সফটওয়্যার টি ব্যবহার করার জন্য তেমন শিক্ষিত হওয়ার প্রয়োজন নেই, সামান্য অক্ষর জ্ঞান থাকলেই হবে।
২৬. মালিক নিজ বাড়ীতে বসে ব্যবসা মনিটরিং করতে পারবে এবং এটি ব্যবসার মোবাইল ফোনে কনফিগারেশন থাকবে।
২৭. এ সফ্টওয়্যারের সাথে কাস্টোমার আর্কষণের জন্য এ্যানিমেটেড স্লাইড শো , দুটি নেটওর্য়াকিং ও একটি মনিটরিং সফ্টওয়্যার ফ্রি।
২৯. টাকা আদান প্রদানের ক্ষেত্রে বিক্রেতা ও ক্রেতার মধ্যে ভুল বশত: বেশী কম হওয়ার সম্ভাবনা নেই।
৩০. হিসাবের ঝামেলা নাই বলে এতে জাল ও ছেঁড়া টাকা সহজেই যাচাই করা যাবে।
৩১. এ সফ্টওয়্যার দিয়ে ২৩ রকমের হিসাবের আউটপুট দেয়া যাবে।
৩২. ফুকাসিং মেশিন পণ্যের উপর ধরলেই সকল প্রকার বিক্রয় ও হিসাব নিকাশ অটোমেটিক্যালি হয়ে যাবে।
৩৩. কাস্টোমার একবার আসলে পরবর্তীতে আজীবন ধরে রাখার জন্য লোভনীয় অফারের বিশেষ সিস্টেম আছে।
৩৪. এ সফ্টওয়্যার দিয়ে একটি ব্যবসায়ের পাশাপাশি ৫ থেকে ১৫ টি ব্যবসায়ের হিসাব পরিচালনা করা যাবে।
৩৬. সফ্টওয়্যারটি খবুই নিরাপদ, বিভিন্ন প্রকার এডমিন বা ইউজার তৈরি করা যায় বলে মোট মূলধন বা লাভ-ক্ষতির হিসাব মালিক ছাড়া পৃথিবীর অন্য কোন লোকের দ্বারা বের করা সম্ভব নয়।
৩৭. কাগজ পত্রের হিসেবে বিভিন্ন প্রকার ভুল হতে পারে বা এটি অনেকে দেখে ফেলতে পারে। এই সফ্টওয়্যারের মাধ্যমে হিসাব করলে কেউ দেখা ত দূরের কথা, একটি টাকাও হারানো কিংবা চুরি, হওয়ার কোন সম্ভাবনা নাই।
৩৮. গ্রাহক বা কর্মচারী ট্রেকিং নাম্বার থাকায় কোন গ্রাহক বা কর্মচারী প্রতারণা করতে পারবে না।
৩৯. কোন সরবরাহকারীর কাছ থেকে কত টাকার পণ্য কিনেছেন, এ পর্যন্ত কত টাকার বিক্রি হয়েছে, কত টাকা লাভ হয়েছে তা জানতে পারবেন।
৪০. একজন কাষ্টমারের কাছে কত টাকার এ পর্যন্ত বিক্রি করেছেন, তার কাছ থেকে কত টাকা লাভ করেছেন তা দিন, মাস ও বৎসর অনুসারে তা জানতে পারবেন।
৪১. পণ্যে বাজার মূল্য সময়ে সময়ে কমবেশী হলে মূল্য আপডেট করার জন্য বিশেষ অপশন আছে।
 
সফটওয়্যারটি কিনতে কিংবা আরো বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করুন:
.
এক্স ওয়াই জেড আইটি সল্যুশন
জিগাতলা, ধানমন্ডি, ঢাকা-১২০৯।
মোবা: 01916-424028, 01914-479168, 01634-776714
  • Download Link
essay